তারিখ : ২০ আগস্ট ২০১৯, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

গৌরীপুরে বখাটে কর্তৃক উত্ত্যক্তের শিকার নারী চিকিৎসক

গৌরীপুরে বখাটে কর্তৃক উত্ত্যক্তের শিকার নারী চিকিৎসক, ইউএনও’র বাসায় গিয়ে আত্মরক্ষা
[ভালুকা ডট কম : ২৪ এপ্রিল]
রোগী সেজে এক বখাটে কর্তৃক প্রতিনিয়তই উত্ত্যক্তের শিকার হয়ে আসছিল এক নারী চিকিৎসক। কর্তৃপক্ষকে জানানোর পরও কোনো ধরনের ব্যবস্থা না নেওয়ায় সোমবার (২২ এপ্রিল) বিকেলে ওই চিকিৎসক বাসায় যাওয়ার পথে ফের বাসের মধ্যেই বখাটে কর্তৃক উত্ত্যক্তের শিকার হন। এ অবস্থায় প্রতিবাদ করলে বখাটের আক্রমনের হাত থেকে রক্ষা পেতে ওই চিকিৎসক দ্রুত ইউএনও’র বাসায় গিয়ে আশ্রয় নেন। এ ঘটনাটি ঘটেছে ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার পৌরসভার বাস্ট্যান্ডে।

স্থানীয় সুত্র, থানায় দেওয়া লিখিত অভিযোগ ও চিকিৎসক জানান, গত দেড় বছর ধরে তিনি গৌরীপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মেডিকেল অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন।চিকিৎসক বলেন, গত প্রায় পনের দিন আগে হাটুতে ব্যাথা নিয়ে রুবেল খান (২৫) নামে এক যুবক তাঁর কাছে আসেন। তিনি তাকে দেখে প্রয়োজনীয় ঔষুধ লিখে ব্যবস্থাপত্র দেন। এর কয়েকদিন পরে আবারও তাঁর কাছে আসেন অন্য ধরনের রোগ নিয়ে। তখনও প্রয়োজনীয় ঔষধ লিখে দেন। এই অবস্থায় প্রায়ই রুবেল খান তাঁর কক্ষে কোনো ধরনের অনুমতি ছাড়াই প্রবেশ করে বিভিন্ন ধরনের কথাবার্তা বলে উত্ত্যক্ত করে। এ অবস্থায় প্রতিবাদ করলে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে চলে যায়।

এ ঘটনাটি তিনি স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে (ইউএইচও) জানালেও কোনো ধরনের ব্যবস্থা নেননি। উপরুন্ত তাঁকে (চিকিৎসক) বলা হয় স্থানীয় ব্যক্তির ঘটনা নিয়ে বাড়াবাড়ি না করতে। এর মধ্যে গত তিন দিন আগে তিনি নিজের কক্ষে দুপুরের খাবার খাচ্ছিলেন। এই সময় ওই বখাটে তাঁর কক্ষে প্রবেশ করে একটি গুড়া দুধের প্যাকেট সামনে দিয়ে খেতে বলে। তখন তিনি খাবার না খেয়ে চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করলে লোকজন ছুটে আসার সাথে সাথে হাসপাতাল ত্যাগ করে ওই যুবক। ফের এ ঘটনাটি তিনি স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে জানান।

ওই চিকিৎসক আরও জানান, সোমবার (২২ এপ্রিল) তিনি হাসপাতাল থেকে দায়িত্ব পালনের পর নিজ বাসা ময়মনসিংহ শহরে যাওয়ার জন্য গৌরীপুর বাসস্ট্যান্ডে  যেতে রিকশায় চড়েন। ওই সময় বখাটে তাঁর পথ রোধ করে রিকশা চালকের কাছ থেকে লাইটার চেয়ে নিয়ে একটি সিগারেট ধরান। এক পর্যায়ে তাঁর সাথে রিকশায় চড়ে বাসস্ট্যান্ডে যাওয়ার প্রস্তাব দেন। না যেতে পেরে অন্য রিকশায় চড়ে সোজা বাস্ট্যাস্ট্যান্ড অবস্থান করে বখাটে। বাসে উঠার পর বখাটে রুবেল খান তাঁর পিছনের সীটে বসে প্রথমে পানি ও পরে কফি নিয়ে এসে খেতে বলে। এ সময় তিনি রাগান্বিত হলে জোরপূর্বক কফি মুখের কাছে নিয়ে যায়। পরে তিনি আত্মরক্ষার্থে বখাটেকে কিলঘুষি ও ধাক্কা দিয়ে নিচে নেমে পড়েন। পরে আরেকটি রিকশায় করে সোজা উপজেলা নির্বাহী কর্মকতার বাসায় গিয়ে ঘটনা অবহিত করেন। এ অবস্থায় ইউএনও’র পরামর্শে ওইদিন সন্ধ্যায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এ বিষয়ে ইউএনও ফারহানা করিম সাংবাদিকদের জানান, এটা অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা। ওই নারী চিকিৎসক উত্ত্যক্তের শিকার হয়ে আমার বাসায় এসে ঘটনা অবহিত করার সাথে সাথে থানাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ব্যবস্থা নিয়ে ওই বখাটে যুবককে গ্রেফতার করতে।

এ বিষয়ে গৌরীুপর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা (ইউএইচও) ডাঃ মো. রবিউল ইসলাম জানান, তিনি উত্ত্যক্তের ঘটনা জানতে পেরেছেন গত তিনদিন আগে। এর আগে জানতেন না। ঘটনা জেনে তিনি স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে বখাটে সর্ম্পকে বিচার দিয়েছেন। চেয়ারম্যান বিচারের আশ্বাস দিয়েছিলেন। এখন থানায় অভিযোগ দিতে বলেছি।

গৌরীপুর থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত বখাটে যুবক রুবেল খান এ উপজেলার বোকাইনগর ইউনিয়নের গড়পাড়া গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে। তাকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে। #





সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অপরাধ জগত বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৮৬ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই