তারিখ : ১৫ এপ্রিল ২০২১, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকায় ভূঁইয়া পেপার মিলে আবারো কিশোর শ্রমিকের মৃত্যু

ভালুকায় ভূঁইয়া পেপার মিলে আবারো কিশোর শ্রমিকের মৃত্যু
[ভালুকা ডট কম : ১১ জানুয়ারী]
ভালুকায় ভূঁইয়া পেপার মিলের মেশিনে পিষ্ট হয়ে মেহেদি হাসান (১৫) নামে এক কিশোর শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার (১১ জানুয়ারি) ভোররাতে উপজেলার ছোট কাঁশর এলাকায়। ফ্যাক্টরির অব্যবস্থাপনার কারণে একইভাবে মেশিনে পিষ্ট হয়ে এর আগেও মাসুদ রানা (২৪) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছিল।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, উপজেলার পাড়াগাঁও গ্রামের রফিকুল ইসলামের কিশোর ছেলে স্থানীয় নবদিগন্ত হাই স্কুলের নবম শ্রেণীর ছাত্র মেহেদী হাসান (১৫) চলতি বছরের ৭ জানুয়ারি ভূঁইয়া পেপার মিলে শ্রমিক হিসেবে কাজে যোগদান করেন। গত রোববার প্রতিদিনের মতো নাইট শিফটে কাজ শুরু করেন। রাতের কোন এক সময় তিনি হাইকন পালপাড় ও কনবেয়ার বেল্ট মেশিনের সাথে পিষ্ট হয়ে মারা যান। সোমবার সকালে সহকর্মিরা মেহেদির লাশ দেখতে পেয়ে মিল কর্তৃপক্ষকে খবর দেয়। পরে থানায় বিষয়টি জানানো হলে ভালুকা মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়।

নিহতের মা হামিদা খাতুন বলেন, তার ছেলে ১০ পারা কুরআনের হাফেজ। এবছর সে অষ্টম শ্রেণী থেকে নবম শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হয়ে পাড়াগাঁও নবদিগন্ত স্কুল থেকে নতুন বই নিয়েছে। তার বাবা নেই, পড়া লেখার টাকা যোগারের জন্য তিনদিন আগে এই ফ্যাক্টরীতে চাকরী নিয়েছে।

এ সময় ফ্যাক্টরীর বাইরে উপস্থিত স্থানীয় লোকজন জানান, কারখানাটি লাউতি খাল দখল করে গড়ে উঠেছে। ইটিপি প্লান ব্যবহার না করেই শিশু শ্রমিকদের দিয়ে তাদের ইচ্ছেমতো উৎপাদন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। কারখানার উচ্ছিষ্ট ময়লা কাগজ প্রকাশ্যে আগুণ দিয়ে পুড়িয়ে এলাকার পরিবেশ মারাত্মক ক্ষতি করছে। শিল্পআইনের তোয়াক্কা করছেনা ফ্যাক্টরীটি। গত ২০১৯ সালের ২১ অক্টোবর রাতে ফ্যাক্টরির অব্যবস্থাপনার কারণে মেশিনে পিষ্ট হয়ে মাসুদ রানা নামে আরো এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছিল।

ভুঁইয়া পেপার মিলের অ্যাডমিন ম্যানেজার আব্দুর রহিম বলেন, ভোরের দিকে পেপার কাটিং নেবার সময় নিহত মেহেদীর লাশ দেখতে পেয়ে ভালুকা মডেল থানাসহ ফ্যাক্টরীর উর্ধ্বতণ কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়। পরে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইন উদ্দিন কারখানায় আসেন। কিশোর শ্রমিক দিয়ে কাজ করানোর বিষয়টি অস্বীকার করে তিনি আরো বলেন, স্থানীয় চেয়ারম্যানপ্রাপ্ত জন্ম নিমন্ধন দেখে শ্রমিকদেরকে নিয়োগ দেয়া হয়ে থাকে।

ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মাঈন উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পরিবার থেকে অভিযোগ করলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়েরের প্রস্তুতি প্রক্রিয়াধীন।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৩০৯ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই