তারিখ : ২৮ মে ২০২৪, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকায় বোরো ধানে চিটা কৃষকের মাথায় হাত

ভালুকায় বোরো ধানে চিটা কৃষকের মাথায় হাত
[ভালুকা ডট কম : ১৮ এপ্রিল]
চলতি বোরো মৌসুমে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে থোরধান চিটায় পরিণত হয়ে মরে যাচ্ছে। এতে কৃষকরা ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে পরছেন। ১৭ এপ্রিল বুধবার সকাল ৯ টার দিকে উপজেলার মেদুয়ারী গ্রামে গিয়ে দেখাযায় কৃষকের বোরো ধান ক্ষেত মরে সাদা হয়ে গেছে। দুর খেকে দেখে মনে হয় সবুজ ধান ক্ষেতের মাঝখানে সাদা চিটা ধানের শিষ বাতাসে দুলছে। আসলে ধানের শিষ গুলিতে কোন চাল নেই শুধুই পাতলা ধানের চোঁচা। হাত দিয়ে ষ্পর্শ করলে মনে হয় ধানগুলি সম্পুর্ণ চিটায় পাতলা হয়ে গেছে।

মরা চিটা ধান হাতে কৃষক বিধান বাবু জানান তিনি ৩২ শতাংশ জমিতে ব্রী-ধান ২৮ জাতের আবাদ করেছিলেন। এতে তিনি হালচাষ বাবদ ১৬০০ টাকা, রোপন ২০০০ টাকা, এক হাজার টাকার সার, বীজ ৩০০ টাকা, পানি সেচ বাবদ ৩২০০ টাকা ও ৩০০ টাকার কীট নাশক দিয়েছেন। তার ক্ষেতের ধান সম্পুর্ণ মরে চিটা হওয়ায় ২০ মণ ধানের ক্ষেতে ২০ কেজি ধানও পাবেননা বলে তিনি জানান। তিনি জানান তার ও আশপাশের অনেকের ধান মরে চিটা হলেও কৃষি বিভাগের কেউ ক্ষেতের কাছে আসেননি। তিনি একটি ধান গাছের গোড়ার অংশ বের করে দেখান যেখানে মাইজ কাটা কালো দাগ রয়েছে। মাইজ কাটার কারনে ধানের শিষ মরে চিটা হয়ে ছড়া গুলি সাদা হয়ে গছে। প্রতিশেধক হিসেবে কৃষি বিভাগের পরামর্শ না পাওয়ায় তারা স্থানীয় কীটনাশক দোকানীর পরামর্শে ক্ষেতে ঔষধ দিয়েও কোন ফল পাননি। ওই গ্রামের কৃষক বুইশ্যার ৫৬ শতাংশ জমির ধান চিটা হওয়ার কারনে কেটে গোখাদ্য হিসেবে বাজারে বিক্রি করেছেন বলে জানা গেছে।

একই এলাকার কৃষক বাছির উদ্দীন জানান তার ২৪ শতাংশ জমির বোরো ধান সম্পুর্ণ শিষ মরে চিটা হয়ে গেছে। স্থানীয় কীটনাশক দোকান হতে ঔষধ দিয়েও কোন ফল পাননি। একই গ্রামের লাল মিয়ার ১১ কাঠা (৭৭) শতাংশ জমির ধান মরে সম্পুর্ণ চিটা হয়ে গেছে। একই এলাকার খলিলের ৫৬ শতাংশ, আতাবদ্দির (৪২) শতাংশ, মিন্টুর (৩৫) শতাংশ, বাবুল মিয়ার (২১) শতাংশ ও সফিকুল ইসলামের (২৮) শতাংশ সহ আরও অনেকের ধান চিটা হয়ে গেছে। এসব কৃষকদের ঘরে একমুঠো বোরো ধান উঠবেনা বলে তারা জানিয়েছে। কৃষকদের অভিযোগ সঠিক পরামর্শে আক্রান্ত ফসলে ঔষধ প্রয়োগ করতে না পারায় তাদের ধান নষ্ট হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে বুধবার সকাল সোয়া ১২ টার দিকে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নুসরাত জাহানকে অফিসে না পেয়ে সরকারী নাম্বার ০১৭০০৭১৫৭৮৬ তে বার বার ফোন দিলে তা বন্ধ দেখানোয় ব্যক্তিগত নাম্বারে ফোন দিলে রিসিভ না করার কারনে বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৮৯০৭ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই