তারিখ : ২১ জানুয়ারী ২০২২, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নান্দাইলে বিদ্রোহী প্রার্থীর হাতে নৌকা প্রতীক

নান্দাইলে বিদ্রোহী প্রার্থীর হাতে নৌকা প্রতীক,তৃণমুল নেতাকর্মী ও জনমনে ক্ষোভ
[ভালুকা ডট কম : ২৫ ডিসেম্বর]
ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার ৪নং চন্ডিপাশা ইউনিয়নে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের দলীয় নৌকা প্রতীক প্রাপ্ত হয়েছেন বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী মো. ইফতেকার হোসেন খুররম। এতে চন্ডিপাশা ইউনিয়নের তৃণমুল আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী সহ জনমনে তীব্র ক্ষোভ ও মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবার ২৩ ডিসেম্বর চন্ডিপাশা ইউনিয়নের বাশঁহাটি বাজারে চন্ডিপাশা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ আয়োজিত আলোচনা সমাবেশে বাংলাদেশ চেয়ারম্যান সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা আওয়ামীলীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ৩ বারের ইউপি চেয়ারম্যান এমদাদুল হক ভূইয়ার বক্তব্যের প্রতি সমর্থন জানিয়ে উপস্থিত সকল নেতাকর্মী ও সাধারন জনগণ তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করেছেন।

জানাগেছে, প্রথমে নৌকা প্রতীক না পাওয়ায় ইফতেকার হোসনে খুররম আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসাবে গত ৮ই ডিসেম্বর আনারস প্রতীক চেয়ে রিটার্নিং অফিসে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছিলেন। পরবর্তীতে ৯ই ডিসেম্বর মনোনয়ন পত্র দাখিলের পরদিন (১০ই ডিসেম্বর) বিদ্রোহী প্রার্থী নৌকার মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মো.ফখরুজ্জামানের নিকট মনোনয়ন পত্রের প্রাপ্তি স্বীকার না করে জমা দেন। শুধু তাই নয় এ বিষয়টি নিয়ে উপজেলা রিটানিং কর্মকর্তা প্রধান নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সচিব বরাবর সহ বিভিন্ন প্রশাসনের ১০টি দপ্তরে নির্দেশনা চাইলেও ২০ ডিসেম্বর অনিয়মতান্ত্রিকভাবে তথা সরকারি আইন অমান্য করে উক্ত রিটার্নিং কর্মকর্তা দলীয় চাপে এই বিদ্রোহী প্রার্থী ইফতেকার হোসেন খুররমকে নৌকা প্রতীক বরাদ্দের ঘোষণা দেন। যদিও ৪ই ডিসেম্বর আওয়ামীলীগের মনোনয়ন বোর্ডের সভায় নৌকার মনোনয়ন প্রাপ্ত বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান মো. এমদাদুল হক ভূইয়া ৯ই ডিসেম্বর দলীয় মনোনয়ন পত্র সংযুক্তি করে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার বরাবর দাখিল করেছেন। সরকারের আইনকে অপব্যবহার করে এমদাদুল হক ভূইয়ার মনোনয়ন পত্র বাতিল করে দেয় নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নি কর্মকর্তা মো. ফখরুজ্জামান। এতে মহামান্য হাইকোর্টে এমদাদুল হক ভূইয়ার আবেদনের প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ বিচারকগণ শুনানী বেঞ্চে তাঁর মনোয়নপত্র বৈধ ঘোষণা দিয়েছেন এবং ২০ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দের শেষ মুহুর্তের পূর্বেও উক্ত রায়ের বিষয়টি নান্দাইল উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে অবহিত করলেও তা তিনি আমলে নেননি।

এ বিষয়ে এমদাদুল হক ভূইয়া বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল বলেই আইনের সুশাসন প্রতিষ্ঠা করে যাচ্ছেন। আমিও আইনের প্রতি বিশ্বাসী ও আশ্বস্ত। আমি আশা করি, আমার কাছ থেকে অনিয়মতান্ত্রিকভাবে নৌকা কেড়ে নেওয়া হয়েছে। আমি আইনের মাধ্যমে এর সুবিচার পাবো ইনশাল্লাহ। নান্দাইল উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটানিং কর্মকর্তা মো. ফখরুজ্জামান বলেন, তিনি উধ্বর্তন প্রশাসনের কোন লিখিত বা মৌখিক নির্দেশনা পাননি। তবে দলীয় সিদ্ধান্তে ইফতেকার হোসনে খুররমের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষণা ও প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

রাজনীতি বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১৭৮৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই