তারিখ : ২০ জুন ২০২৪, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

রাণীনগরের যাত্রী ছাউনিগুলো প্রভাবশালীদের দখলে

রাণীনগরের অধিকাংশ যাত্রী ছাউনিগুলো প্রভাবশালীদের দখলে,চরম বিড়ম্বনায় যাত্রী সাধারণরা
[ভালুকা ডট কম : ২৮ ফেব্রুয়ারী]
নওগাঁর রাণীনগরের অধিকাংশ যাত্রী ছাউনিগুলো প্রভাবশালীদের দখলে চলে গেলেও নীরব ভ’মিকায় প্রশাসন। এতে করে সরকার যেমন রাজস্ব হারাচ্ছে অপরদিকে যানবাহনের জন্য রাস্তায় এসে বিশ্রামের জায়গা না পাওয়ায় চরম বিপাকে যাত্রী সাধারনরা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার খাঁনপুকুর এলাকার তিনমাথা মোড়ে অবস্থিত যাত্রী ছাউনিটি স্থানীয় প্রভাবশালী আমজাদ মন্ডল নামের একব্যক্তি দখল করে মিল তৈরি করছেন। ইতিমধ্যেই ওই যাত্রী ছাউনির সামনে নতুন করে টিনের ছাউনি তৈরি, সামনে অংশে ঢালাই ও ইট দিয়ে প্রাচীর দেওয়া হচ্ছে। যার ফলে পরবর্তি সময়ে এই যাত্রী ছাউনিটি ব্যবহারের আর কোন সুযোগ থাকছে না। বিশেষ করে প্রচন্ড রোদে কিংবা বর্ষা মৌসুমে কোন যাত্রী রাস্তায় এসে এই যাত্রী ছাউনিতে আর আশ্রয় নিতে পারবে না। এভাবে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে নির্মাণ করা যাত্রী ছাউনিগুলোর প্রতি প্রশাসনের সঠিক পর্যবেক্ষণ, তদারকি ও রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে অবৈধ দখলের শিকার হয়ে পড়ে আছে। যদি নতুন করে এই যাত্রী ছাউনিগুলো সংস্কার করা হয় তবে যাত্রীরা আবার এই যাত্রী ছাউনিগুলো প্রয়োজন মাফিক ব্যবহার করতে পারতো।

উপজেলার রাতোয়াল গ্রামের যাত্রী মকবুল হোসেন বলেন দীর্ঘদিন যাবত এই যাত্রী ছাউনিগুলোর কোন সংস্কার না করার জন্য তা ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। যার কারণে যাত্রীরা যাত্রী ছাউনিগুলো ব্যবহার করতে পারছে না। ফলে স্থানীয় প্রভাবশালীরা সুযোগ বুঝে যার যার মতো করে দখল করে নিচ্ছে। যদি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষরা যাত্রী ছাউনিগুলো নতুন করে আধুনিকায়ন করতো তাহলে দূর-দূরান্তে গমনকারী যাত্রীরা এই যাত্রী ছাউনিগুলোতে কিছু সময়ের জন্য বিশ্রাম নিতে পারতো।

উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভ’মি) মোহাম্মদ হাফিজুল ইসলাম বলেন খাঁনপুকুরসহ অন্যান্য যাত্রী ছাউনিগুলো উপজেলা প্রশাসনের আওতায় কিনা সেই বিষয়ে খোঁজখবর নিয়ে সেগুলো অবৈধ দখলের হাত থেকে মুক্ত করতে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

জেলা পরিষদের সচিব গোলাম শাহনেওয়াজ বলেন জেলার ১১টি উপজেলার বিভিন্ন স্থানের যাত্রী ছাউনিগুলোর মধ্যে অনেকগুলো জেলা পরিষদের আওতায় আবার অনেকগুলো স্থানীয় সরকার বিভাগ এবং উপজেলা প্রশাসনের আওতায় রয়েছে। তবে রাণীনগর উপজেলার বেদখল হওয়া যাত্রী ছাউনিগুলো যদি জেলা পরিষদের আওতায় হয় তাহলে সেগুলো বেদখলের হাত থেকে মুক্ত করতে এবং সেগুরো আধুনিকায়ন করতে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানাবো।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকার বাইরে বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৯৩৯০ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই