তারিখ : ০১ ডিসেম্বর ২০২২, বৃহস্পতিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

ভালুকায় ভূমি কর্মকর্তার ভূমিকা রহস্যজনক

ভূমি সহকারী কর্মকর্তার ভূমিকা রহস্যজনক
ভালুকায় শেখ রাসেল স্টেডিয়ামের জমি দখল করে বাড়ী নির্মানের অভিযোগ
[ভালুকা ডট কম : ০৮ নভেম্বর]
ভালুকা উপজেলার হবিরবাড়ী ইউনিয়নের জামিরদিয়া মৌজায় শেখ রাসেল স্টেডিয়ামের  জন্য বরাদ্দকৃত ১৫০নং দাগে১/১ নং খাসখতিয়ানে সরকারী জমি জবর দখল করে বাড়ী নির্মানের অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায়  হবিরবাড়ী ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা জীবন কুমার বিশ্বাস বাদী হয়ে ৫ নভেম্বর ভূমি দখলদারদের বিরুদ্ধে সহকারী কমিশনার (ভূমি)একটি মামলা দারব করেছেন।

স্থানীয় ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাযায়,হাবরবাড়ী  ইউনিয়নের জামিরদিয়া গ্রামে শেখ রাসেল স্টেডিয়ামের জন্য বরাদ্ধ কৃত জমি জবর দখল করে বাড়ী নির্মান কাজ করে যাচ্ছেন স্থানীয় আব্দুল আজিজ,বাবুল মিয়া,কাশেম,রহম আরী, মজিবর রহমান, রফিকুল,সবুজ মিয়া,মিঠু,আহাম্মদ ফাইজ উদ্দিন,আক্কাস আলী,হাবিবুর রহমান ওআবেদা খাতুন গংরা । জামিরদিয়া মৌজায় ১৫০নং দাগে মোট জমি রয়েছে ১শত ৬৬ একর যার মাঝে ১/১ নং খাসখতিয়ানে সরকারী জমি ১শত ২একর  এই জমি থেকে ৩ একর জমি দেয়া হয়েছে শেখ রাসেল স্টেডিয়ামের জন্য জবর দখল করে  প্রায় ২০/২২ টি ঘর তৈরী করে ।  গত শনিবার দিন হবিরবাড়ী ইউনিয়নের ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে  কয়েকটি ঘরের নির্মান কাজ বন্ধ করে দেন।

ওই এলাকার বাসিন্দা সুমন,জসিম,জযনালসহ  একাধীক ব্যাক্তি জানান, হবিরবাড়ী ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা জীবন কুমার বিশ্বাসকে  শেখ রাসেল স্টেডিয়ামের  জন্য বরাদ্দকৃত ১৫০নং দাগে১/১ নং খাসখতিয়ানে সরকারী জমি জবর দখল করে বাড়ী নির্মান করার কথা জানালেও কার্যকর কোন প্রদক্ষেপ নেয়নি জীবন বাবু তিনি আরো আগে প্রদক্ষেপ নিলে এসব বাড়ীঘর হতনা ।স্টেডিয়ামের  জায়গা প্রায় দখল হয়েই গেছে। স্টেডিয়ামের  জমি জবর দখল হওয়ায় ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তার ভূমিকা নিয়ে জনমনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

অভিযুক্ত মিঠু জানান,  জমির দাগ খতিয়ান বরতে পারবনা,আমি জমি ক্রয় করে বাড়ী নির্মান করছি। মজিবর রহমান জানান,পুর্ব পুরুষ হতে এ জমি ভোগ দখলে আছি।যখন স্টেডিয়াম এর জায়গার প্রয়োজন হবে তখন ছেড়ে দিব।হবিরবাড়ী ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা জীবন কুমার বিশ্বাস জানান, শেখ রাসেল স্টেডিয়ামের জমি জবর দখল করে ওই জমিতে ঘর তোলা শুরু করলে ঘটনা স্থলে উপস্থিত হয়ে নির্মান কাজ বন্ধ করে দেই এবং দখলদার ১৫ জনের বিরুদ্ধে উচ্ছেদ এর জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি)একটি মামলা দায়ের করেছি।

উল্লেখ্যএর আগে ৮ মার্চ ২০২২ইং তারিখে ২জনের নাম উল্লেখ  করে অজ্ঞাত ৪/৫ জনকে আসামী করে  ভালুকা মডেল থানায় একটি মামলা  দায়ের করি ।ভালুকা মডেল থানার ওসি (তদন্ত) জাহাঙীর আলম জানান,  সরকারী জমি জবর দখলের অভিযোগে মামলা নিয়ে এক আসামীকে  গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরন করা হয় ।

সহকারী কমিশনার  (ভূমি) আব্দুল্লাহ আল বাকীউল বারী জানান, হবিরবাড়ী ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা  একটি প্রতিবেদন পাঠিয়েছে  আমি ডিসি স্যারের কাছে পাঠিয়ে দিব উচ্ছেদের জন্য। সরকারী জমি যাতে কোন ভাবেই বেহাত না হয় সে দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখব। তাছাড়া ও হবিরবাড়ী ইউনিয়ন ভূমি  কর্মকর্তাকে দখলদারদের বিরুদ্ধে  ভালুকা মডেল থানায় আরো একটি মামলা করতে বলেছি।#




সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

ভালুকা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৫৫৩৫ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই