তারিখ : ২১ জুলাই ২০২৪, রবিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

গাজীপুরের শ্রীপুরে জলাশয় থেকে বস্তাবন্দী জীবিত মানুষ উদ্ধার

গাজীপুরের শ্রীপুরে জলাশয় থেকে বস্তাবন্দী জীবিত মানুষ উদ্ধার
[ভালুকা ডট কম : ১৭ জুন]
গাজীপুরের শ্রীপুর পৌর এলাকার ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের (শ্রীপুর টেক্র্যটাইলের) পাশের জলাশয় থেকে বস্তাবন্দী এক ইউপি সদস্যকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। ইউপি সদস্যের নাম বদরুল আলম ভুঁইয়া (৬২)। সে কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর উপজেলার ৪নং সরারচর ইউনিয়ন পরিষদের ২ নং ওয়ার্ডের সদস্য এবং গোবিন্দপুর গ্রামের মৃত ইলিয়াস ভূঁইয়ার ছেলে। সে ওই ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক। শনিবার সকাল ১১টার দিকে শ্রীপুর থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

বেড়াইদেরচালা এলাকার সাইফুল ইসলামের ছেলে রাব্বি হোসেন জানান, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মহাসড়কের পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় ছোট্ট একটি জলাশয় থেকে অল্লাহু আল্লাহু শব্দ শুনতে পান। এগিয়ে জলাশয়ে দেখতে পান একটি বস্তার ছেঁড়া অংশ দিয়ে মাথা বের হয়ে আছে। এর ভেতর থেকেই শব্দটা ভেসে আসছে। আশপাশের লোকজন ডেকে এনে তিনি বস্তাটি পানি থেকে টেনে তুলেন। বস্তা খুলে দেখতে পান জীবিত মানুষ। পরে থানা পুলিশকে খবর পাঠান।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বদরুল আলম ভুঁইয়া জানান, ২০১৪ সালে তার এলাকার ২০ জন লোককে বিদেশে পাঠানোর জন্য ঢাকার আশকোনা এলাকার সিঙ্গাপুর ট্রেনিং সেন্টারের মালিক সাগর মিয়াকে ৩৫ লাখ টাকা দেন। সাগর বিদেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করতে না পেরে টাকা ফেরত দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। সাগর নানা ধরনের টালবাহানা করতে থাকলে তিনি নিজে জমি বিক্রি করে ২০জনের টাকা পরিশোধ করে দেন। ওই টাকা আনার জন্য বিভিন্ন সময় সাগরের কাছে যেতেন বদরুল আলম। বৃহষ্পতিবার ওই টাকা আনতে গিয়ে ট্রেনিং সেন্টারে সাগর মিয়ার সাথেই ইফতার করেন। এরপর থেকে তিনি আর কিছু বলতে পারেননি।

বদরুল আলম ভুঁইয়ার ছেলে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, গত বৃহস্পতিবার (১৫জুন) সকালে এগারসিন্ধুর ট্রেনের মাধ্যমে তার বাবা রাজধানী ঢাকায় সাগর নামে এক ব্যাক্তির সাথে দেখা করার কথা বলে বাড়ী হতে বের হন এবং বলে যান সন্ধ্যার ট্রেনে বাড়ী ফিরবেন। কিন্তু বিকেল হতেই তার বাবার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়। পরে তার সন্ধানের জন্য বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখোঁজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। তবে বাবাকে কে বা কারা এমন অবস্থা করেছেন তা তাদের জানা নেই। বাবাই ভালো বলতে পারবেন।

শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জামিল আহমেদ জানান, উদ্ধারকৃত বদরুল আলম বর্তমানে সুস্থ। ধারণা করা হচ্ছে ট্রেনিং সেন্টারের মালিক বা তার লোকজন তাকে অচেতন করে মৃত্যু নিশ্চিত জেনে জলাশয়ে ফেলে গেছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অপরাধ জগত বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৯৩৯১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই