তারিখ : ০৪ জুলাই ২০২২, সোমবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

বেতন,বোনাস ঈদের আগেই পরিশোধের দাবি

বেতন,বোনাস ঈদের আগেই পরিশোধের দাবি
[ভালুকা ডট কম : ১৫ এপ্রিল]
বাংলাদেশের পোশাক কারখানার শ্রমিকরা চলতি এপ্রিলের পুরো বেতন ও ঈদ বোনাস আগামী ২০ রমজানের মধ্যে পরিশোধের দাবি জানিয়েছে। আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দু’টি শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকে আয়োজিত পৃথক সমাবেশে এ দাবি জানানো হয়েছে।তবে, সরকারের পক্ষ থেকে ঈদুল ফিতরের আগেই তৈরি পোশাকসহ প্রতিটি কারখানার শ্রমিকদের ঈদ বোনাস ও এপ্রিলের ১৫ দিনের বেতন পরিশোধের  নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  গত ১১ এপ্রিল সরকার, মালিক ও শ্রমিক-ত্রিপক্ষীয় পরামর্শ পরিষদের (টিসিসি) ৭১তম সভায় শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এ নির্দেশনা দেন।

আজ সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতি আয়োজিত মানববন্ধনে শ্রমিক নেত্রী তাসলিমা আকতার বলেন, সরকার ও গার্মেন্টসের মালিকেরা একযোগে শ্রমিকদের ওপর চড়াও হয়েছেন। এপ্রিলের ১৫ দিনের বেতন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এমন সিদ্ধান্ত আমরা  প্রত্যাখ্যান করছি। মালিকেরা রেকর্ডসংখ্যক অর্ডার পাচ্ছেন, কিন্তু শ্রমিকদের পেটে ভাত নাই। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম আকাশ ছুঁয়েছে। বেতন-বোনাস শ্রমিকের অধিকার। ২০ রমজানের আগে এপ্রিলের পুরো বেতন ও ঈদ বোনাস দিতে হবে।

মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সদস্য বাবুল হোসেন, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক সৈকত আরিফ প্রমুখ। মানববন্ধন শেষে বেতন-বোনাসের দাবিতে তোপখানা রোডে  একটি বিক্ষোভ মিছিল করা হয়।

অপরদিকে, জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট  আয়োজিত পৃথক  এক বিক্ষোভ সমাবেশ শ্রমিক নেতৃবৃন্দ  ঈদুল ফিতরের ছুটির আগে শ্রমিকদের সব বকেয়া-বেতন, পূর্ণ বোনাস পরিশোধ, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গতি রেখে মহার্ঘ্য ভাতা প্রদান, নিত্যপণ্যের রেশন ব্যবস্থা ও জাতীয় ন্যূনতম মজুরি ২০ হাজার টাকা ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন।

শ্রমিক নেতারা অভিযোগ করেন,  প্রতি বছর ঈদের আগে শ্রমিকদের ন্যায্য বোনাস থেকে বঞ্চিত করতে বিভিন্ন টালবাহানা করা হয়। শ্রম আইনে বোনাস সর্বোচ্চ কতটুকু হবে তা উল্লেখ করলেও নিম্নসীমা নির্দিষ্ট না থাকায় শ্রমিকদের ন্যায্য বোনাস থেকে বঞ্চিত করার সুযোগ নেওয়া হয়। ২৭ এপ্রিলের পর থেকে মাসের অবশিষ্ট দিনগুলো ছুটি থাকবে। তাই এপ্রিল মাসের পূর্ণ বেতন শ্রমিকদের প্রাপ্য। কোনো টালবাহানা না করে এক মাসের মূল মজুরির সমান বোনাস ও এপ্রিলের পূর্ণ বেতন ঈদের ছুটির আগেই পরিশোধ করতে হবে।

বেতন-বোনাস পরিশোধের পাশাপাশি ঈদের ছুটিতে শ্রমিকদের নিরাপদে বাড়ি যাওয়ার ব্যবস্থা করার দাবি জানিয়ে তারা বলেন, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে শ্রমিকের প্রকৃত মজুরি প্রায় অর্ধেকে নেমে যাওয়ায় শ্রমিকদের জীবনমানের মারাত্মক অবনমন হয়েছে। দেশের উন্নয়ন, মাথাপিছু আয় বৃদ্ধির চিত্রের সঙ্গে শ্রমিকদের জীবনমানের চিত্র সঙ্গতিপূর্ণ নয়। তাই শ্রমিকদের দৈনন্দিন জীবনযাপনের মান ধরে রাখতে জাতীয় ন্যূনতম মজুরি ২০ হাজার টাকা ঘোষণাসহ স্কপের ৯ দফা বাস্তবায়ন করতে হবে। অন্তর্র্বতী সময়ে মহার্ঘ্য ভাতা ও নিত্যপণ্য রেশনের ব্যবস্থা করতে হবে।শ্রমিকদের প্রাপ্য পাওনা থেকে বঞ্চিত করার চেষ্টা হলে উদ্ভূত পরিস্থিতির দায় মালিকদের বহন করতে হবে বলেও সমাবেশ থেকে হুঁশিয়ারি দেয়া হয়।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অন্যান্য বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৩৪৩০ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই