তারিখ : ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, মঙ্গলবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

নওগাঁয় ডিসির নির্দেশে চলছে অশ্লিল যাত্রাপালা

রাত যত গভীর হয় নগ্নতা ততই বাড়ে
নওগাঁর পতিসরে কবিগুরুর জন্মোৎসবের নামে ডিসির নির্দেশে চলছে অশ্লিল যাত্রাপালা
[ভালুকা ডট কম : ১৫ জুন]
নওগাঁর আত্রাই উপজেলার পতিসরে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মোৎসবের নামে যাত্রাপালায় ব্যাপক অশ্লীলতাসহ নগ্ন নৃত্যের অভিযোগ উঠেছে। গত পহেলা জুন থেকে ‘আনন্দ অপেরা’ যাত্রা মঞ্চ নামে এই নগ্ন নৃত্য চলছে বলে জানা যায়। স্থানীয়রা বলছেন, এমন নৃত্য বন্ধ না হলে এলাকার যুব সমাজ ধ্বংসের মুখে পড়বে।

স্থানীয় সূত্রে ও সরেজমিনে জানা যায়, গত ৮মে জেলা প্রশাসন ও সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের জাতীয় আয়োজন হিসেবে পতিসরে তিনদিনব্যাপী আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও গ্রামীণ মেলার মধ্য দিয়ে রবীন্দ্র জন্মোৎসব শেষ হয়। এরপর স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি নিজেদের রবীন্দ্র ভক্ত দাবী করে রবীন্দ্র জন্মোজয়ন্তীর নামে জেলা প্রশাসক বরাবর মাসব্যাপী পতিসর এলাকায় যাত্রাপালার আবেদন করে অনুমতি নেয়। যেখানে গ্রামীণ যাত্রাপালা পরিবেশনের জন্য ‘আনন্দ অপেরা’ যাত্রা পালার নামে গত পহেলা জুন থেকে নগ্ন নৃত্য পরিবেশন করা হচ্ছে। রাত ১১টার পর থেকে চলে এই নগ্নতা। সেখানে ২০০টাকা থেকে ৬০০টাকা পর্যন্ত টিকিটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে। রাত যত গভীর হয় যাত্রাপালার নামে নগ্নতা ততই বাড়ে। টিকেট কেটে যাত্রা পান্ডেলে প্রবেশের পর মাত্র ১০টাকার বিনিময়ে নারী নৃত্য শিল্পীদের বিশেষ স্থানে হাত দেবার দৃশ্যও চোখে পরাম মতো। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মোৎসবের নামে এমন অশ্লীলতায় এলাকাবাসী ও সচেতন মহল ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করে এই যাত্রাপালা বন্ধ সহ কবিগুরুর নামকে কুলষিত করায় এর সঙ্গে জড়িতদের বিচার দাবী করেছেন।

স্থানীয় পতিসর এলাকার আবাদুস সামাদ বলেন, জীবনে যাত্রা দেখেছি অনেকবার। কিন্তু এমন নগ্ন নৃত্য দেখিনি কখনো। এ নৃত্য বন্ধ না হলে এলাকার যুব সমাজ ধ্বংসের মুখে পড়বে। প্রশাসন কিভাবে এমন অনুমতি দিলো বুঝলাম না।

স্থানীয় যুবক আকাশ হোসেন বলেন,যেখানে যাত্রা মঞ্চ তৈরী করা হয়েছে তার ২০গজ দূরেই রথীন্দ্রনাথ উচ্চ বিদ্যালয়ের সীমানা ও ১০০গজ দূরে হাফেজিয়া মাদ্রাসা রয়েছে। রাতভর চলছে গানের তালে তালে নগ্ন নাচ। আর সেখানে বিশেষ করে যুবকদের উপচে পড়া ভিড়। এসব বন্ধ করা দরকার। যারা এসব আয়োজন করেছে তারা প্রভাবশালী। যার কারনে কেউ প্রতিবাদ করার মত সাহস কেউ পাচ্ছেনা। আর প্রসাশনই বা কেন নিরব।

আত্রাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য চৌধুরী গোলাম মোস্তফা বাদল এর ছত্র-ছায়ায় এমন আয়োজন চলছে এবং তিনি বাটোয়ারা নিচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মেলায় নিয়ম মেনে যাত্রাপালা চলছে, কোন অশ্লীলতা হচ্ছে না। তাকে মেলায় ধারনকৃত অশ্লীল নৃত্যের ভিডিও ও ছবি দেখানো হলে চরমভাবে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন এবং বলেন জেলা প্রশাসন জেনে বুঝে মেলার অনুমতি দিয়েছে।

যাত্রা মঞ্চের সমন্বয়কারী মতিউর রহমান মামুন বলেন, আমরা রবীন্দ্র ভক্ত। আমি একজন রবীন্দ্র গবেষক। রবীন্দ্র জন্ম জয়ন্তী উপলক্ষে দেশের সুস্থ্য সাংস্কৃতি র্চচা বিকশিত করতে মাসব্যাপী যাত্রাপালার আয়োজন করেছি। যেখানে রবীন্দ্র ভক্তরা সহ সকলেই এসে বিনোদন উপভোগ করতে পারবে। এখানে এসে কিশোর-যুবকরা আনন্দ করছে। আমাদের এই যাত্রাপালার মাধ্যমে সারাদেশে সুস্থ্য সাংস্কৃতির উদাহরন সৃষ্টি করতে চাই। কোন ধরনের নগ্নতা হচ্ছেনা বলে দাবি তার।

আত্রাই থানার ওসি তারেকুর রহমান সরকার বলেন, যাত্রায় অশ্লীলতার বিষয়ে জানতে পেরে বৃহস্পতিবার ভোরে তাৎক্ষণিক ভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি জেলা প্রশাসকসহ উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের জানিয়েছি। পরবর্তিতে তারাই এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক খালিদ মেহেদী হাসানকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোনকল রিসিভ করেননি।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

বিনোদন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৮৯০৪ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই