তারিখ : ২১ জুলাই ২০২৪, রবিবার

সংবাদ শিরোনাম

বিস্তারিত বিষয়

আদিবাসীদের প্রতিনিধি টপ্পোর এগিয়ে চলার গল্প

নওগাঁর আদিবাসীদের প্রতিনিধি একজন লড়াকু জগবতি টপ্পোর এগিয়ে চলার গল্প
[ভালুকা ডট কম : ১০ সেপ্টেম্বর]
“আদিবাসী সমাজে নারী-পুরুষের মধ্যে কোন ভেদাভেদ নেই, তারা সমান মর্যাদা ও অধিকার ভোগ করে” এমন কথা প্রায়ই শোনা যায়। আদিবাসী সমাজ ব্যবস্থাকে সমঅধিকারের সমাজ ব্যবস্থা হিসেবেও চালিয়ে দেওয়ার চেষ্ঠা করা হয়। আদিবাসীরা যেন সমাজে এক ছোটজাতের জনগোষ্ঠির মানুষ। সেই ধারণাকে বদলে দিতে প্রতিনিয়তই নিজের গোষ্ঠির মানুষদের সমঅধিকার নিশ্চিত করতে ও সমাজের মূলধারায় যুক্ত করার প্রত্যয় নিয়ে কাজ করে আসছেন আদিবাসীদের নেত্রী শ্রীমতি জগবতি রানী টপ্পো।

নওগাঁ জেলার বদলগাছী উপজেলার ২নং মথুরাপুর ইউনিয়নের লক্ষীকুল গ্রামের মৃত: জয়নাত সরদার টপ্পো ও তরুবালা রানী টি¹ার মেয়ে এক আদিবাসী গোষ্ঠির সংগ্রামী নারী হচ্ছে শ্রীমতি জগবতি রানী টপ্পো। সাত বোন ও দুই ভাইয়ের মধ্যে জগবতী রানী টপ্পো চতুর্থ। অভারের সংসারে বেড়ে ওঠা জগবতি গরীব বাবার ঘরে খেয়ে না খেয়ে জীবন জাপন করেছেন। সে সময় গ্রামে-গঞ্জে নারী শিক্ষার হার ছিল খুবই কম। তিনি ১৯৯৯সালে এসএসসি পাশ করেন। দারিদ্রতার কারনে পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়নি। ২০০০সালে একই গ্রামের শ্রী জতীন্দ্রনাথ তির্কীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। স্বামীর অনুপ্রেরনায় সমাজসেবা মূলক বিভিন্ন কার্যক্রমের সাথে যুক্ত হন তিনি।

জগবতি রানী টপ্পো বলেন বিয়ের পর স্বামীর অনুপ্রেরনায় তিনি ২০০৫সালে বিএ পাশ করেন। পাশাপাশি সমাজসেবা মূলক কাজে নিজেকে নিয়োজিত করে স্বপ্ন দেখেন ইউনিয়ন পরিষদের “মহিলা মেম্বার” হওয়ার। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে শত বাধা আর বিপত্তিকে উপেক্ষা করে তিনি ২০১১সালে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত সদস্য পদে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ী হতে পারেন না। পরে ২০১৬সালের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আবারো সংরক্ষিত সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন তিনি  কিন্ত আবারো শত ষড়যন্ত্রের কাছে তাকে হার মানতে হয়।

এরপর ২০১৯ সালে জগবতি রানী টপ্পো অপরাজিতা নামক এক প্রকল্পের সাথে যুক্ত হন। সেখান থেকে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ গ্রহন করে তার জ্ঞান ও দক্ষতার প্রসার ঘটান। তিনি জনগনের মাঝে সম্পৃক্ততা বাড়াতে সমাজ সেবামূলক কাজের সাথে লেগেই থাকতেন সব সময়। বাল্য বিবাহ বন্ধ, নারী নির্যাতন প্রতিরোধ, চিকিৎসার জন্য আদিবাসী নারী-শিশুকে উপজেলা থেকে বিভিন্ন সুবিধা নিয়ে দেয়া, আদিবাসী প্রতিবন্ধী শিশুদের ভাতায় নিবন্ধিত করতে সাহায্য করাসহ নানা ধরণের সমাজ সেবামূলক কাজে নিজেকে সব সময় নিযুক্ত রাখেন তিনি। এই সব কাজের মাধ্যমে তিনি নিজের গোষ্ঠিসহ এলাকার সকল মানুষের কাছে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন।

পুনরায় তিনি ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা মেম্বার হওয়ার স¦প্ন নিয়ে নতুন উদ্যোমে ২০২১ সালের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত আসনের সদস্য পদে “তালগাছ” প্রতিক  নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। নির্বাচনের আগে তাকে বিভিন্ন ভাবে হেনস্থার শিকার করা হয়, পোষ্টার ছিড়ে ফেলা, প্রচার মাইক ভেঙ্গে ফেলা, ভোটের দিন কেন্দ্রে সমর্থকদের মারপিট করা, জোর করে ভোট দেওয়া ইত্যাদি কর্মকান্ড চালানো হয়। একপর্যায়ে ৩টি কেন্দ্রে ভোট গণনা বন্ধ রাখা হয়। পরে প্রশাসন ও সাংবাদিকদের সহায়তায় ভোট গণনার পরে ২২হাজার ২৫ভোট পেয়ে বিজয়ী হন জগবতী রানী টপ্পো।

লড়াকু জগবতি রানী টপ্পো সব সময় নিজের মটরবাইকের মতো ছুটে চলেন। একজন প্রান্তিক ও পিছিয়ে পড়া আদিবাসি জনগোষ্ঠির নারী তার অদম্য ইচ্ছে শক্তি দিয়ে মানুষের হৃদয়ে স্থায়ী ঠিকানা গড়তে দিন-রাত গ্রামে গ্রামে ঘুড়ে বেড়াচ্ছেন। সমতার সমাজ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে সমতলের একজন আদিবাসী লড়াকু জগবতি রানী প্রতিনিধিত্ব করছেন। বিশেষ করে সকল স্থানে আদিবাসী নারীর দুরবস্থাকে আড়াল করা  হয়। জগবতি রানী সেই চিরায়ত ধারাকে ভেঙ্গে সমতার সমাজ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। পুরুষ তান্ত্রিকতাকে পরাজিত করে সামাজিক অনুশাসন, ধর্ম, অর্থ ও পেশীশক্তিকে মোকাবেলা করে নিজের গোষ্ঠির মানুষসহ দেশের পিছিয়ে পড়া সকল মানুষদের সমাজের মূলধারায় যুক্ত করে তাদের সমঅধিকার নিশ্চিত করা পর্যন্ত জগবতি রানী টপ্পো তার জীবনের শেষ দিন এই লড়াই চালিয়ে যাওয়ার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন।

জেলা প্রশাসক মো. গোলাম মওলা বলেন জগবতি রানী টপ্পো সত্যিই সকলের জন্য এক দৃষ্টান্তর। এমন ব্যক্তিদের জন্য সরকারের সার্বিক সহযোগিতা পাওয়ার দুয়ার সব সময় খোলা আছে। এছাড়া জগবতি রানী টপ্পোর পাশে জেলা প্রশাসন রয়েছে। তাকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করার কথাও জানান জেলা প্রশাসক।#



সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

নারী ও শিশু বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ৯৩৯১ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই